সারা বাংলা

স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর দুধ দিয়ে গোসল করলেন যুবলীগ নেতা

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর দুধ দিয়ে গোসল করেছেন অমিত রাজ নামে এক যুবলীগ নেতা। দুধ দিয়ে গোসল করে নিজেকে শুদ্ধ করেছেন দাবি করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে গোসলের ছবি ও ভিডিও পোস্ট করেন তিনি। মুহুূর্তের মধ্যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায়।

শনিবার (২১ আগস্ট) উপজেলার বাঁশতৈল ইউনিয়নের অভিরামপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। দুধ দিয়ে গোসলের ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। অমিত রাজ অভিরামপুর গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে এবং বাঁশতৈল ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সম্পাদক বলে জানা গেছে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, অমিত রাজ পার্শ্ববর্তী সখীপুর উপজেলার হাতীবান্ধা ইউনিয়নের রাজাবাড়ি গ্রামের মিজানুর রহমানের মেয়ে টুম্পার সঙ্গে প্রেম করে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের পর তাদের একটি পুত্রসন্তান হয়। ওই পুত্রসন্তানের বয়স তিন বছর। বিয়ের পর থেকেই পারিবারিক কলহের জেরে দুইজনের মধ্যে বনিবনা হচ্ছিল না। তিন মাস আগে টুম্পা তার স্বামীর বাড়ি থেকে বাবার বাড়ি চলে যায়। এ ঘটনায় অমিত রাজ মির্জাপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

অন্যদিকে টুম্পাও স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের বিরুদ্ধে টাঙ্গাইল জেলা পুলিশ সুপারের কাছে নারী নির্যাতনের অভিযোগ দেন। পরে এ ঘটনায় গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) তদন্ত করেন।

শনিবার (২১ আগস্ট) ডিবি পুলিশের তদন্ত কর্মকর্তা মোক্তার হোসেন জেলা ডিবি কার্যালয়ে দুই পক্ষ নিয়ে সালিসি বৈঠকে বসেন। সালিসে দুই পক্ষের মতামতের ভিত্তিতে তিন লাখ টাকার বিনিময়ে টুম্পা ডির্ভোস মেনে নেন। পরে তাৎক্ষণিক নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে তাদের বিচ্ছেদ হয়। অমিত টুম্পাকে তিন লাখ টাকা দিয়ে শিশুসন্তানকে নিয়ে বাড়ি চলে আসেন।

অমিত রাজ বলেন, প্রেমের বিয়ে হলেও স্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না। সব সময় পারিবারিক কলহ লেগেই থাকত। বিচ্ছেদের পর আইনিভাবে ঝামেলা থেকে মুক্ত হয়েছি। পরে আমার দাদি দুধ দিয়ে গোসল করিয়ে ঘরে তুলে নিয়েছে। এখন কোনো অশান্তি নেই। দুধ দিয়ে গোসলের ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে পোস্ট করেছি। পরে সেটি ভাইরাল হয়।

বিচ্ছেদের ব্যাপারে টুম্পার ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগ করলে তার নম্বরটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

আরও সংবাদ

Close