সারা বাংলা

শ্বশুড়বাড়িতে স্ত্রীকে খুন : বাড়িতে ফিরে স্ত্রীর ওড়না দিয়ে স্বামীর আত্মহত্যা

কথায় আছে প্রেমের বিয়ে বেশি দিন নাকি টিকে না। তার প্রমাণ ফের মিললো। প্রেম করে বিয়ে করার পর স্বামী-স্ত্রীর সংসার জীবন কাটছিল অশান্তিতে। প্রায় দিনই লেগে থাকতো ঝগড়াঝাঁটি। এভাবে কেটেছে তাদের তিন বছর। কোন ভাবেই বনিবনা হচ্ছিল না দু’জনার।অশান্তি আর কলহর আগুনে জ্বলতে জ্বলতে অতিষ্ঠ হয়ে শশুর বাড়িতেই স্ত্রীকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করেন স্বামী। এরপর বাড়ি ফিরে স্ত্রীর ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন স্বামী।

ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুর জেলার সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের কৃষ্ণনগর গ্রামে। বুধবার (৭ জানুয়ারি) পারিবারিক অশান্তি-কলহ-বিরোধের জের ধরে স্ত্রী লামিয়া মিমকে (২০) হত্যা করে নিজে আত্মহত্যা করে স্বামী বিপ্লব মন্ডল (২৫)। খবর পেয়ে পুলিশ বিকালে লামিয়ার লাশ এবং সন্ধ্যায় বিপ্লবের লাশ থানায় নিয়ে আসে। পরে পুলিশ লাশ দুটি উপজেলা হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বিপ্লব মন্ডল তার স্ত্রী লামিয়া মিমকে নিয়ে গত তিনদিন আগে একই এলাকায় অবস্থিত শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে যান। বুধবার (৬ জানুয়ারি) সকালে লামিয়া মিম তার মায়ের সাথে পাশের একটি বাড়িতে যান পিঠা বানানোর চাল ভাঙাতে। পরে স্ত্রী লামিয়া তার মাকে রেখে নিজ বাড়িতে ফিরে আসেন স্বামী বিপ্লবকে খাবার দিতে।

লামিয়ার মা শিউলী বেগম ঘন্টা দুই পরে বাড়ি ফিরে দেখতে পান তার মেয়ে লামিয়াকে লেপ দিয়ে পেঁচিয়ে রাখা হয়েছে। তখন তিনি লামিয়ার কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে চিৎকার শুরু করলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন। লামিয়াকে দ্রুত ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আরও সংবাদ

Close